Site icon কালাক্ষর

সর্বকালের সেরা দশজন সামরিক জেনারেল কারা ছিলেন ?

খালিদ ইবনে-ওয়ালিদ রহঃ– নবীজির আমলে মুসলিম সেনাপতি । খালিদ ইবনে-ওয়ালিদ রহঃ এর ক্যারিয়ারে একটি যুদ্ধও হারেননি। তিনি সেই সময় বিশ্বের দুই পরাশক্তি পার্সিয়ান এবং বাইজেন্টাইনদের পরাজিত করেছিলেন। তাকে ইসলামের তলোয়ার উপাধীতে ভুষিত করা হয়-


নেপোলিয়ন বোনাপার্টঃ
নেপোলিয়ন বোনাপার্ট ছিলেন ফরাসী সেনাপতি পরে তিনি ফরাসী সম্রাট হন । নেপোলিয়ন বোনাপার্ট তার সামরিক ক্যারিয়ারে ৫৫ টি যুদ্ধে জিতেছিলেন এবং ৮ টিতে হেরেছিলেন । রোমান সাম্রাজ্যের পতনের পর নেপোলিয়ন বোনাপার্ট কন্টিনেন্টাল ইউরোপের বৃহত্তম বৃহত্তম সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।


জুলিয়াস সিজারঃ– রোমের স্বৈরশাসক ও যুদ্ধের সেনাপতি । তিনি একজন উজ্জ্বল কৌশলবিদ, কৌশলবিদ এবং লজিস্টিকের মাস্টার। তিনি পম্পে দ্য গ্রেটকে পরাজিত করেছিলেন, একসময় রোমের সর্বশ্রেষ্ঠ সামরিক নেতাদের একজন।


এরিক ভন ম্যানস্টেইনঃ
সর্বকালের অন্যতম সেরা কৌশলবিদ ও সামরিক চিন্তাবিদ হিসেবে জার্মান জেনারেল/ সেনাপতি এরিক ভন ম্যানস্টেইন এর নাম গন্য করা হয়- এরিক ভন ম্যানস্টেইন ১৯৪০ সালে ফ্রান্সে আক্রমণ করে দখল করেছিলেন। এরিক ভন ম্যানস্টেইন খুব সল্প সংখ্যাক সেনা নিয়ে ক্রিমিয়া দখল করেছিলেন এবং স্ট্যালিনগ্রাদের আক্রমনের সময় জার্মান ফ্রন্টকে স্থিতিশীল করতে সহায়তা করেছিলেন।


তৈমুর লংঃ তৈমুর ছিলেন ইউরোশিয়ান অঞ্চলের এক দুর্দান্ত যাযাবর সামরিক জেনারেল/ সেনাপতি – তার লক্ষ্য ছিল চেঙ্গিস খানের মহান মঙ্গোল সাম্রাজ্যের পুনরুদ্ধার করা। চেঙ্গিস খান, তৈমুরের দুসম্পর্কের পূর্বপুরুষ ছিলেন। তৈমুর তার জীবন দশায় গ্রেট আলেকজান্ডার ব্যতীত অন্য যে কোন সম্রাজ্য এর চেয়ে বেশি অঞ্চল জয় করেছিলেন। তাঁর রাজত্বের শেষের দিকে, তৈমুর ছাগাতাই খানতে, ইলখানাতে এবং গোল্ডেন হর্সের সমস্ত অবশেষকে নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন এবং তিনি চীনে ইউয়ান রাজবংশ পুনরুদ্ধারের চেষ্টা করেছিলেন।


ডিউক অফ মার্লোবরোঃ স্পেনীয় উত্তরসূরীর যুদ্ধের সময় মিত্রবাহিনীর ব্রিটিশ জেনারেল/ সেনাপতি । ডিউক অফ মার্লোবরো ব্লেনহিম, রিমিলিজ এবং ওডেনার্ডে ফরাসিদের পরাজিত করেছিলেন। মারলবারো ছিলেন এমন এক ব্যক্তি যিনি যুদ্ধের ময়দানে কখনো পিছু হটে যাওয়া চিন্তা করতেন না- শত্রুকে দ্রুত আক্রমন করে ছিন্ন ভিন্ন করে দেওয়াই তাই সামরিক পরিকল্পনার অংশ ছিল-


আলেকজান্ডার সুভোরভঃ- একজন অপরাজিত রাশিয়ান জেনারেল/ সেনাপতি – আলেকজান্ডার সুভোরভ তুর্কি, পোলিশ এবং ফরাসিদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন। তিনি যুদ্ধ শিল্পের গভীর চিন্তাবিদ ছিলেন এবং বিপ্লবী ফ্রান্সকে আক্রমণ করেছিলেন।


সাবুতাইঃ- বিশ্ব ব্যাপি মঙ্গল আগ্রাসনে দুর্ধষ মঙ্গল বাহিনীর এক জেনারেল এর নাম সাবুতাই- তিনি বিশেরও বেশি যুদ্ধ পরিচালনাকে বিশ্বের এত বেশি অঞ্চল জয় করেছিলেন তা অন্য কোন সেনাপতি করেনি – সাবুতাই দু’দিনের মধ্যে হাঙ্গেরি এবং পোল্যান্ডের সেনাবাহিনীকে ধ্বংস করে দেওয়া যুদ্ধের পরিকল্পনাটি তার মাধ্যমেই করা হয় – ইতিহাসে মঙ্গোল সাম্রাজ্যের অন্যতম দক্ষ জেনারেল হিসাবে দক্ষতা, কৌশল এবং আনুগত্যের দিক থেকে এশিয়া ও পূর্ব ইউরোপের সামরিক অভিযানে সহায়তা করা ইতিহাসে সুবুতাইকে গণ্য করা হয় ।


দ্য গ্রেট আলেকজান্ডারঃ- ম্যাসেডোনিয়ার এক অপরাজিত রাজা যিনি পারস্য সাম্রাজ্য জয় করেছিলেন এবং ভারত উপমহাদেশে আক্রমন করেছিলেন-


ফ্রেডরিক দ্য গ্রেটঃ- একজন প্রুশিয়ান রাজা/সেনাপতি যিনি দক্ষতার সাথে সিলিসিয়ান যুদ্ধে তাঁর সেনাবাহিনী পরিচালনা করেছিলেন। রসবাখ এবং লিউথেনের যুদ্ধে তাঁর কৌশলগত উজ্জ্বলতা স্পষ্ট ভাবে ফুটে উঠেছিল ।

 

Exit mobile version